যেভাবে WhatsApp Channel দিয়ে ইনকাম করতে পারেন

 

WhatsApp channel

WhatsAppসম্প্রতি যে নতুন ফিচারগুলো এসেছে তার মধ্যে অন্যতম হলো চ্যানেল। বাংলাদেশসহ ১৫০টি দেশে কিছুদিন আগেই এ ফিচারটি চালু করেছে হোয়াটস্যাপের নিয়ন্ত্রণ সংস্থা Meta। ঘরে বসেই আয় করাসহ আরও নানা সুবিধা পাওয়া যাবে এই চ্যানেলের মাধ্যমে! তাই ফিচারটি আসতেই হুড়াহুড়ি পড়ে গেছে নেটদুনিয়ায়।

Meta জানিয়েছে, হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীরা চ্যানেল বানিয়ে কমিউনিটি তৈরি করতে পারবেন। শুধু সামাজিক পরিচিতি নয়, বেশ কিছু উপায় রয়েছে যার মাধ্যমে অর্থ উপার্জনেরও সুযোগ রয়েছে।

ফ্রিল্যান্সিংয়ে সুবিধা: (Advantages of freelancing)

বর্তমান ডিজিটাল যুগে অনেকেরই ফ্রিল্যান্সিং একটি জনপ্রিয় ক্যারিয়ার পছন্দ হয়ে উঠেছে। ফ্রিল্যান্সিংয়ের জন্য একাধিক প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। তবে হোয়াটসঅ্যাপ যেহেতু একটি পার্সোনাইলজড অ্যাপ তাই এখানে ক্লায়েন্টদের সঙ্গে খুবই স্বচ্ছভাবে নিজের দক্ষতা তুলে ধরার সুযোগ রয়েছে। আপনি যদি লেখালিখি করতে ভালবাসেন কিংবা ভালো গ্রাফিক্স ডিজাইনিং ও প্রোগ্রামিং জানেন তাহলে নিজের চ্যানেল বানিয়ে ফলোয়ারদের সেই পরিষেবা দিতে পারেন।

লিঙ্ক পাঠিয়ে উপার্জন: (Earn by sending links)

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং হলো এমন একটি বিপণন ব্যবস্থা, যেখানে কোনো অ্যাফিলিয়েট নেটওয়ার্কে বহিরাগত ওয়েবসাইটের সূত্রে (রেফারেন্সে) কোনো পণ্য বা সেবা বিক্রি হলে বিক্রেতা সেই অ্যাকাউন্টকে তার লাভের একটি অংশ কমিশন হিসেবে দিয়ে থাকেন। বর্তমানে অনলাইনে আয়ের অন্যতম জনপ্রিয় উপায় এটি। আর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলেও রয়েছে সেই সুযোগ। সাবস্ক্রাইবার ও ফলোয়ারদের সেসব পণ্যের লিঙ্ক পাঠাতে পারেন, যা থেকে আয় হতে পারে আপনারও।

পণ্য বিক্রির সুবিধা:(Product sales facility)

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলের মাধ্যমে বিভিন্ন মার্চেন্ডাইস এবং অ্যাক্সেসরিজও বিক্রি করার সুবিধা রয়েছে। কারও কোনো ব্যবসা না থাকলেও সে বিভিন্ন গ্রাফিক্স টেম্পলেট, ই-বুক, অনলাইন কোর্স, ডিজিটাল প্রোডাক্টস ইত্যাদি প্রমোট করতে পারবেন হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলের মাধ্যমে।

ক্যাটালগ বানিয়ে উপার্জন: (Earn by making catalogs)

ছোট কোনো ব্যবসা থাকলে এই চ্যানেলের মাধ্যমে গ্রাহকদের কাছে পৌঁছানো যাবে। চ্যাটের মাধ্যমে নিজের ক্যাটালগ দেখানো যাবে। আর তাদের অর্ডার নেয়া এবং পেমেন্ট সাপোর্টও দেয়ার সুযোগ থাকছে।

আরো পড়ুন: লঞ্চের আগেই জানা Honor X9b-এর ফ্রন্ট ক্যামেরা ও সফটওয়্যার ডিটেলস

ওয়ার্কশপ তৈরি করা: (Creating workshops)

রান্না, আঁকা, ফটোগ্রাফি, সিনেমাটোগ্রাফি ইত্যাদির ওপর অনেকের খুব দক্ষতা আছে। এসব বিষয়ের ওপর হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেলে ওয়ার্কশপ তৈরি করতে পারেন। এতে একটি চার্জ নিতে পারেন কাস্টমারদের থেকে। হোয়াটসঅ্যাপে যেহেতু ভিডিও, অডিও কলের সুবিধা রয়েছে তাই ওয়ান-অন-ওয়ান কোচিংও করাতে পারেন।

হোয়াটসঅ্যাপ চ্যানেল তৈরি করবেন কীভাবে: How to create WhatsApp channel

এজন্য প্রথমে আপনাকে WhatsApp টি ওপেন করতে হবে। এরপর Update TAB গিয়ে + আইকনে ক্লিক করতে হবে। এই অপশনতে ক্লিক করার সঙ্গে সঙ্গে আপনি নিউ চ্যানেল অপশন পাবেন। সেটিতে ক্লিক করতে হবে। এবার গেট স্টার্টেডে ক্লিক ককরে অন স্ক্রিন ইনস্ট্রাকশনে যা কিছু লিখা থাকবে, তা মেনে চলুন। তারপর চ্যানেলের নাম দিয়ে একটি অ্যাকাউন্ট তৈরি করুন। চ্যানেলের নাম দেয়ার পর কাস্টমাইজ করার অপশন দেখতে পাবেন।

How to make whatsapp channel


প্রযুক্তি বিষয়ক ওয়েবসাইট গিজমোচিনার প্রতিবেদন অনুসারে, অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস ও ডেস্কটপের সর্বশেষ ভার্সনে ফিচারটি ব্যবহার করা যাবে। তবে এই ফিচার এখনো নতুন। তাই অনেক অ্যাকাউন্টে সাবস্ক্রাইব করার অপশন থাকলেও চ্যানেল তৈরি করার অপশন নাও থাকতে পারে। কারণ পুরোপুরি এই ফিচার সবার জন্য উন্মুক্ত হতে সময় লাগবে।

আরো পড়ুন: জেনে নিন হোয়াটসঅ্যাপ কীভাবে হ্যাক হয় এবং বাচার উপায়।


Post a Comment

নবীনতর পূর্বতন